শিক্ষার্থীর মাকে মু’খ চে’পে ধ’রে ধ’র্ষণ ক’রলেন শিক্ষক

0

এবার এক শিক্ষার্থীর মাকে মু’খ চে’পে ধ’রে ধ’র্ষণ ক’রলেন শিক্ষক। ছাত্রীকে শিক্ষক ধ’র্ষণ করেছেন-এমন খবর প্রায়ই পত্রিকার পাতায় পাওয়া যায়। কিন্তু শিক্ষার্থীর মা’কে শি’ক্ষক ধ’র্ষণ ক’রেছেন এমন খবর খুবই কমই পাওয়া যায়। এবার এমনই ঘ’টনা ঘ’টেছে বড়াইগ্রামে।

ওই এলাকার আনিসুর রহমান নামে এক স্কুলশিক্ষকের বি’রুদ্ধে মো’বাইলে ডে’কে নি’য়ে এক শিক্ষার্থীর মা’কে ধ’র্ষণের অ’ভিযোগ উঠেছে। এদিকে, ভু’ক্তভো’গীকে থানায় যেতে না দিয়ে চা’পের মু’খে আ’পস মীমাংসার নামে বাবার বাড়ি যেতে বা’ধ্য করেছেন স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ গ্রামপ্রধানরা।

অ’ভিযুক্ত আনিসুর রহমান মাঝগ্রামের সাদেকুর রহমান মুন্সীর ছেলে। তিনি মাঝগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক হিসাবে কর্ম’রত। জানা যায়, গত ৬ জানুয়ারি সন্ধ্যায় আনিসুর রহমান ওই না’রীকে ছেলের লেখাপড়া বি’ষয়ে কথা বলার জন্য মোবাইলে

এক প্রতিবেশীর বাড়িতে ডে’কে নেন। পরে সেখানে বাড়ির সদস্যদের অ’নুপস্থিতির সু’যোগে আনিস তাকে মু’খ চে’পে ধ’রে ধ’র্ষণ করে। এ সময় প্রতিবেশীরা তার ডাক চি’ৎকারে এগিয়ে এসে আনিসকে হা’তেনাতে আ’ট’ক করেন। কিন্তু খবর পেয়ে আনিসের স্বজনরা

এসে হু`মকি-ধা’মকি দিয়ে তাকে ছা’ড়িয়ে নিয়ে যান। পরের দিন ওই না’রীর বাবাকে খবর দিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্য আব্দুল জব্বারের নেতৃত্বে স্থানীয় গ্রামপ্রধানরা নামকাওয়াস্তে বিষয়টি মী’মাং’সা করেন এবং ওই না’রীকে তার বাবার স’ঙ্গে চ’লে যে’তে বা’ধ্য করেন।

এ ঘটনার পর থেকে অ’ভিযুক্ত আ’নিস প’লাতক থাকায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। এ বিষয়ে মাঝগ্রাম উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রুস্তম আলী মোল্লার কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, আনিস শা*রী’রিক অ’সুস্থতার কারণে ছুটিতে আছেন। বড়াইগ্রাম থানার ওসি দিলীপ কুমা’র দাস বলেন, ঘটনা স’ম্পর্কে খোঁ’জ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্য’বস্থা গ্র’হণ করা হবে।bdmorning

Leave A Reply

Your email address will not be published.