ই-পেপার বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

সড়কে শৃঙ্খলায় হিমশিম পুলিশ

ব্যস্ত রাস্তায় ব্যাটারিচালিত তিন চাকার যান চলাচলে বিশৃঙ্খলার শঙ্কা
শাহীন আলম
২৩ মে ২০২৪, ১২:০০

বাবুবাজার বেড়িবাঁধ থেকে গাবতলী রাস্তাটি অত্যন্ত ব্যস্ত রাস্তা। লেগুনা-পিকআপ এবং বাস-ট্রাকসহ ভারি যানবাহন চলে এই রাস্তায়। ২৪ ঘণ্টাই ব্যস্ত এই রাস্তায় চলাচলেও ঝুঁকিও অনেক। অথচ এই রাস্তায় দেদার চলছে নছিমন, করিমন, ভটভটি ও ব্যাটারিচালিত রিকশা। দুর্ঘটনাও ঘটছে যত্রতত্র। তবে এসব দুর্ঘটনায় মানুষ মারা যাওয়ার সংখ্যা কম হলেও আহতের তালিকা অনেক দীর্ঘ। এলাকার অলিগলিতে নছিমন, করিমন, ভটভটি ও ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচল করলে সমস্যা নাই। তবে এই বেড়িবাঁধের মতো ব্যস্ত রাস্তায় এগুলো চললে বেড়ে যাবে দুর্ঘটনা এবং মৃত্যুর ঝুঁকি এমনই দাবি করেছেন স্থানীয়রা। শুধু বাবুবাজার বেড়িবাঁধ থেকে গাবতলী রাস্তাটিই নয় এমন চিত্র অনেক ব্যস্ত সড়কেও। ব্যাটারিচালিত রিকশার চালকরা এত বেপরোয়া ভাবে এবং দ্রুত গতিতে চালান যে অন্য যানের চালকরাই ভয় পান। আগে যাওয়ার প্রবণতা, দ্রুত যাত্রী নামিয়ে অন্য যাত্রী নেয়ার পাঁয়তারা এবং অল্প সময় অধিক আয়ের মনোভাবে তারা এতটাই দ্রুত চালান যে অন্যদের আর পরোয়া করেন না। অথচ সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে এবং বজায় রাখতে নিরলসভাবে কাজ করছে পুলিশ। নেয়া হচ্ছে একের পর এক পদক্ষেপ। কমানো হয়েছে মোটরসাইকেল এবং প্রাইভেটকারের গতিসীমা। পুলিশ যখন সড়কে শৃঙ্খলা ঠিক রাখতে নিচ্ছে একের পর এক পদক্ষেপ ঠিক তখনই নছিমন, করিমন, ভটভটি ও ব্যাটারিচালিত রিকশা নতুন মেরুকরণ।

এদিকে নীতিমালা ছাড়া ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক চলাচলের বৈধতা দেয়া হলে ঢাকা শহরে এ ধরনের যান দ্বিগুণ হবে। পাল্লা দিয়ে বাড়বে সড়কে বিশৃঙ্খলা কিংবা দুর্ঘটনা। তাই ব্যাটারিচালিত যান বৈধতা দেয়ার আগে নীতিমালা করা জরুরি বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।

অথচ যন্ত্রের সাহায্যে চলে এমন যানবাহনের অনুমোদন দেয়ার একমাত্র এখতিয়ার বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ)। নছিমন, করিমন, ভটভটি ও ব্যাটারিচালিত রিকশাকে যানবাহনের মর্যাদা দেয়নি বিআরটিএ। এসব যানের কোনো নীতিমালা ও নিবন্ধন নেই। চালকদেরও নেই কোনো আইনি সুরক্ষা। আবার ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের বিধিমালায় ব্যাটারিচালিত যানের বিষয়ে কিছু বলা নেই। তাই এখন পর্যন্ত এসব যান অবৈধ হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

বেড়িবাঁধের বেশ কয়েকজন পথচারী এবং স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, এই রাস্তাটি অত্যন্ত ব্যস্ত রাস্তা। এখানে প্রায় সব যানবাহনই দ্রুত গতিতে চলে। এই রাস্তায় অন্যান্য যানবাহনের সাথে পাল্লা দিয়ে চলার চেষ্টা করে নছিমন, করিমন, ভটভটি ও ব্যাটারিচালিত রিকশাও। অথচ দ্রুত চলাচলের কারণে প্রতিনিয়তই ঘটে একের পর এক দুর্ঘটনা। নছিমন, করিমন, ভটভটি ও ব্যাটারিচালিত রিকশাগুলো এলাকার অলি-গলিতে চলাচল করলে সমস্যা নাই। তবে তারা যদি এই ব্যস্ত সড়কে চলাচল করে তাহলে সমস্যার আর সমাধান হবে না।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) অ্যাক্সিডেন্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (এআরআই) সাবেক পরিচালক ও পরিবহন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক মো. হাদিউজ্জামান বলেন, ব্যাটারিচালিত রিকশা কোন সড়কে চলবে তার নীতিমালা করে দেয়া উচিত। মূল সড়কে যেখানে বাস ও ভারি গাড়ি চলাচল করছে সেখানে কোনোভাবেই এসব অটোরিকশা চলতে দেয়া উচিত নয়। এতে দুর্ঘটনার ঝুঁকি বাড়বে।’

তিনি বলেন, ‘ব্যাটারিচালিত যান বা রিকশার কাঠামোগত কিছু দুর্বলতা আছে। তবে এটা যে আরও ইম্প্রুভ করার সুযোগ নেই তাতো নয়। ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা দুর্ঘটনা রোধে এর ব্রেকিং সিস্টেম, ফ্রন্টডোর, ব্যাকডোর থেকে শুরু করে সবকিছু উন্নত করার সুযোগ রয়েছে। এ গাড়িগুলোর মূল সমস্যা ব্যাটারির সঙ্গে মোটর যুক্ত থাকে। অর্থাৎ, ব্রেক চাপলেও মোটর ঘুরতে থাকে। একটা ছোট্ট প্রযুক্তি রয়েছে, যা বসিয়ে দিলে ব্রেক করলে মোটরও বন্ধ হয়ে যাবে। তার মানে এ ধরনের যানবাহন নিরাপদ করার সুযোগ আছে।’

বিআরটিএ সূত্র জানায়, সারাদেশে নিজেদের কার্যালয়ের মাধ্যমে পৌনে চার লাখের মতো নছিমন, করিমন, ভটভটি ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার হিসাব বের করেছে তারা। তবে পুলিশ ও বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার ধারণা, ঢাকাসহ সারাদেশে এ ধরনের যান ৬০ লাখের বেশি। এর মধ্যে রাজধানী ঢাকায় এ সংখ্যা তিন থেকে পাঁচ লাখের মতো হবে।

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে নিবন্ধিত প্রায় ৮০ হাজার প্যাডেলচালিত রিকশা রয়েছে। এর মধ্যে নির্দিষ্ট পরিমাণ ফি দিয়ে ডিএনসিসি থেকে নিবন্ধন নিয়েছে প্রায় ৩০ হাজার। বাকি প্রায় ৫০ হাজার ডিএসসিসি থেকে নিবন্ধিত। তবে দুই সিটি করপোরেশনের সংশ্লিষ্টদের ধারণা, ঢাকায় আরও প্রায় সাত লাখ প্যাডেলচালিত রিকশা রয়েছে। এর বাইরে ঢাকায় আরও কয়েক লাখ ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক ঝুঁকি নিয়ে যাত্রী পরিবহন করছে।

গত ১৫ মে ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত আসে। গত ১৯ মে ব্যাটারিচালিত রিকশা উচ্ছেদে অভিযান শুরু করে ঢাকা মহানগর পুলিশ। প্রতিবাদে রাজধানীর মিরপুরে দিনভর সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন চালকরা। ওইদিন তারা কালশী মোড়ে ট্রাফিক পুলিশের একটি বক্স পুড়িয়ে দেন। ভাঙচুর করেন অন্তত ১০টি যানবাহন। পরদিন সোমবার (২০ মে) সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সমাবেশ করে ব্যাটারি-ভ্যান ও ইজিবাইক সংগ্রাম পরিষদ। তারা সারাদেশে আন্দোলন ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দেয়। আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এক অনুষ্ঠানে ঢাকায় ব্যাটারিচালিত রিকশা চলাচলের অনুমতির ঘোষণা দেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, স্বল্প আয়ের মানুষের কষ্টের কথা বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই অনুমতি দিয়েছেন।

সরকার ঢাকা শহরের সড়কে ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক চলাচলের অনুমতি দেয়ার এক দিন পর মঙ্গলবার সকালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ‘বিজয় সমাবেশ’ করেন চালকরা। সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানান তারা।

আমার বার্তা/জেএইচ

স্বস্তি নেই মসলার বাজারে

বছরে দুটি ঈদ আসে। একটি সেমাই, চিনির চাপ বাড়াতে অন্যটি মসলার বাজার গরম করতে। সেই মসলার

থমকে গেছে বিএনপির যুগপৎ আন্দোলন

গত ২৮ অক্টোবর বিএনপি জোট তাদের স্বার্থক ঢাকা অবরোধ করে একরকম ভেবেই নিয়েছিল সরকার পড়বে। 

ঘুরে দাঁড়াতে পারছে না বিএনপি

ঘুরে দাঁড়াতে পারছে না দেশের এক সময়কার একাধিকবার ক্ষমতায় থাকা দল বিএনপি। দলে ভর করেছে

এবার পদ্মা সেতু দিয়ে ঢাকায় আসবে ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন

ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন চালু হচ্ছে কাল ১০ জুন থেকে। এ নিয়ে পঞ্চমবারের মতো এ ট্রেন
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

পল্টনের আগুন: ধোয়ায় অসুস্থ নারী ঢামেক বার্ন ইউনিটে 

দোষী সাব্যস্ত হলে যাবজ্জীবন সাজা হতে পারে ড. ইউনূসের

পল্টনের ফায়েনাজ টাওয়ারে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৫ ইউনিট

দুই পৌরসভায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা নির্বাচন কমিশনের

বিদ্যুতের প্রিপেইড মিটারে ভোগান্তি, তদন্তের নির্দেশ হাইকোর্টের

মিয়ানমারে দারিদ্র্য গভীর হয়েছে: বিশ্ব ব্যাংক

ফাজিলের ফল প্রকাশ, জানবেন যেভাবে

আমরা বাস করি ভূ-তলে, বিনিয়োগ করি পাতালে

যানজট এড়াতে ডিএমপির ২২ পরামর্শ

বেনজীরের আরও সম্পদ ও ফ্ল্যাট জব্দের নির্দেশ

তিস্তা মহাপরিকল্পনার বর্তমান পরিস্থিতি জানালেন প্রধানমন্ত্রী

জম্মু ও কাশ্মীরে ৭২ ঘণ্টায় তিন হামলায় নিহত ১২

নড়াইলে হত্যা মামলায় ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড

অর্থনীতি অদক্ষতার ফাঁদে আটকে আছে: হোসেন জিল্লুর

শান্তিতে ভারত-পাকিস্তানকে পিছনে ফেলে এগিয়ে বাংলাদেশ

অনেক বড় জায়গা থেকে তদবির হচ্ছে: আনারকন্যা ডরিন

এমপি আনার হত্যা মামলা তদন্তে কোনো চাপ নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

দেশের রাজনৈতিক-অর্থনৈতিক কাঠামো ধ্বংস করেছে সরকার

সীমান্তে গুলি চালাতে পারে বিএসএফ: বিজিবির মাইকিং

না ফেরার দেশে চলে গেল দগ্ধ শিশু আয়ান