ই-পেপার বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

গাজীপুরের নগরমাতা জায়েদা খাতুন

অনলাইন ডেস্ক
২৬ মে ২০২৩, ১০:৫১
আপডেট  : ২৬ মে ২০২৩, ১১:০৬

নতুন মেয়র হিসেবে গাজীপুরবাসি জায়েদা খাতুনকে নির্বাচিত করেছেন। নির্বাচনে তিনি ১৬ হাজার ১৯৭ ভোটের ব্যবধানে জিতেছেন।

প্রায় ১২ লাখ ভোটারের এলাকা দেশের সবচেয়ে বড় সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন ২০১৩ সালে যাত্রা শুরু করা এই নির্বাচনের আগে মেয়রের মা হিসেবে পরিচিতি পাওয়া জায়েদা খাতুন। ১৬ হাজার ১৯৭ ভোটে তিনি হারিয়েছেন নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আজমতউল্লা খানকে।

৪৮০টি কেন্দ্রের ফলাফলে টেবিল ঘড়ি প্রতীক নিয়ে জায়েদা খাতুন ২ লাখ ৩৮ হাজার ৯৩৪ ভোট এবং তাঁর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নৌকা প্রতীক নিয়ে আজমত উল্লা খান ২ লাখ ২২ হাজার ৭৩৭ ভোট পেয়েছেন।

মোট ভোটার ১১ লাখ ৭৯ হাজার ৪৬৩ জন। প্রদত্ত ভোট ৫ লাখ ৭৫ হাজার ৫০, যা মোট ভোটের ৪৮ দশমিক ৭৫ শতাংশ।

প্রথমবার ২০১৩ সালের নির্বাচনেও বিএনপির প্রার্থী এম. এ মান্নানের কাছে হেরেছিলেন আজমত। বলা যায়, এবারের হারে গাজীপুরে তাঁর রাজনীতির পথ অনেকটাই সংকুচিত হলো।

ফল ঘোষণার পরপরই সেখানে উপস্থিত গাজীপুরের সাবেক মেয়র, আওয়ামী লীগ থেকে স্থায়ী বহিষ্কার হওয়া জাহাঙ্গীর আলম নিজের প্রতিক্রিয়ার বলেন, ‘এই জয় গাজীপুরে মানুষের।’

নির্বাচনে না থাকলেও বিএনপির স্বতন্ত্র প্রার্থী (হাতি) সরকার শাহনুর ইসলাম (রনি সরকার) পেয়েছেন ২৩ হাজার ২৬৫ ভোট। জাতীয় পার্টির প্রার্থী এম এম নিয়াজ উদ্দিন ১৬ হাজার ৩৬২ ভোট, ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশের গাজী আতাউর রহমান পেয়েছেন ৪৫ হাজার ৩৫২ ভোট, মাছ প্রতীকের আতিকুল ইসলাম ১৬ হাজার ৯৭৪, গোলাপ ফুলের মো. রাজু আহমেদ ৭ হাজার ২০৬ ও ঘোড়া প্রতীকের হারুন অর রশিদ ২ হাজার ৪২৬ ভোট পেয়েছেন।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে নৌকা প্রতীকে গাজীপুরের মেয়র নির্বাচিত হন ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম। কিন্তু বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তির অভিযোগে মেয়াদ শেষের আগেই নিজের পদ হারাতে হয় তাঁকে। দল থেকে সাময়িক বরখাস্তও হন। এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর বিরুদ্ধে দাঁড়ানোর পর স্থায়ী বহিষ্কার হন তিনি। কিন্তু নিজের বয়স্ক মাকে নিয়ে মাঠে ছিলেন। ‘আম্মাজান’ চলচ্চিত্রের শীর্ষ সংগীত ‘আম্মাজান আম্মাজান আপনি বড় মেহেরবান’ গান বাজিয়ে গত কয়েক দিন ধরে ছুটেছেন গাজীপুরের এ মাথা থেকে ও মাথা।

এবি/ জিয়া

নৌপথে গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশ প্রতিমন্ত্রীর

কিছু মানুষ আছে নৌপথে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে সরকারের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করার চেষ্টা করে। সে কারণে

কারও কোনো ক্ষতি করিনি, চেষ্টাও করিনি: ড. ইউনূস

শ্রম আইন লঙ্ঘনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় ৬ মাসের সাজাপ্রাপ্ত নোবেলজয়ী ড. ইউনূসের জামিন আগামী

কিরগিজের মন্ত্রীকে বাংলাদেশিদের নিরাপত্তা নি‌শ্চিতের অনুরোধ

কিরগিস্তানের উপ-শিক্ষামন্ত্রী রাসুল আভাজবেক উলুর সঙ্গে বৈঠক করেছেন দেশটি‌তে নিযুক্ত বাংলা‌দে‌শের অনাবা‌সিক রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ

৮০ শতাংশ নৌশ্রমিক চর্ম ও আন্ত্রিক রোগে আক্রান্ত: এসসিআরএফ

লবনাক্ত ও অপরিশোধিত পানি ব্যবহারের কারণে দেশের অভ্যন্তরীণ নৌপথে চলাচলকারী নৌযানসমূহের ৮০ শতাংশ শ্রমিক-কর্মচারি চর্মরোগ
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

দুই-তিন মাস ধরে এমপি আনারকে খুনের পরিকল্পনা হয়

নৌপথে গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশ প্রতিমন্ত্রীর

মেক্সিকোতে নির্বাচনী প্রচারণার মঞ্চ ভেঙে শিশুসহ নিহত ৯

সরকারের এই নীতি কর্তৃত্ববাদী শাসনের চরম দৃষ্টান্ত: রিজভী

আনার অপকর্মে জড়িত কি না তদন্তে বেরিয়ে আসবে: কাদের

নিজ শহর মাশহাদে দাফন করা হবে রাইসিকে

ফিলিস্তিনকে 'একতরফা স্বীকৃতি' দেওয়ায় বাইডেনের বিরোধিতা

অবশেষে ট্রাম্পকেই সমর্থন দিলেন নিকি হ্যালি

ভিয়েতনামের নতুন প্রেসিডেন্ট তো লাম

‘দণ্ড মাথায় নিয়ে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ আইনের দৃষ্টিতে সমীচীন নয়’

খোলামেলা ফটোশুটে প্রিয়াঙ্কার উত্তাপ

বাংলাদেশ ব্যাংক সমবায় সমিতিতে পরিণত হয়েছে: ড. সালেহ উদ্দিন

এমপি আনার হত্যাকাণ্ডে জড়িত কে এই শিলাস্তি রহমান

শান্তিরক্ষা মিশনে নিয়োগ নিয়ে সতর্ক জাতিসংঘ

ইরানের রাষ্ট্রদূতের কার্যালয়ে গিয়ে শোক প্রকাশ করলেন ফখরুল

কারও কোনো ক্ষতি করিনি, চেষ্টাও করিনি: ড. ইউনূস

যে ৫ খাবার আপনার ওজন কমাবে

কিরগিজের মন্ত্রীকে বাংলাদেশিদের নিরাপত্তা নি‌শ্চিতের অনুরোধ

শাহজালাল বিমানবন্দরে ৫ কোটি টাকার স্বর্ণসহ আটক ২

বাবা হারালেন অভিনেত্রী আফসানা মিমি