ই-পেপার বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

রেল উন্নয়নে আগ্রহী বিশ্বের ৫ দেশ

রতন বালো
২৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ১৩:১২

# গণপরিবহনে রূপান্তর করতে ইউরোপীয় মডেল কার্যকর করা প্রয়োজন -বিশেষজ্ঞমহল

# কারিগরি সহায়তা প্রকল্পের আওতায় পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগ দিয়েছে সরকার -সাঈদ মাহবুব খান,অতিরিক্ত সচিব, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ

বাংলাদেশ রেলকে আধুনিক ও উন্নত এবং গতিশীল করতে আগ্রহ দেখিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, স্পেন, ফ্রান্স ও রাশিয়া। বিশ্বের এই পাঁচ রাষ্ট্রের প্রযুক্তি ও কারিগরি জ্ঞানকে রেলের উন্নয়নে কাজে লাগানো গেলে যোগাযোগ ক্ষেত্রে আমূল পরিবর্তন আসবে বলে মনে করেন দেশের পর্যবেক্ষক মহল। বিশেষ করে ইউরোপের দেশ ফ্রান্স, স্পেন, জার্মানি ও রাশিয়ার রেল ব্যবস্থাপনাকে কাজে লাগাতে ইচ্ছুক বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

রেলের আধুনিকায়নে ইউরোপের মডেল সারা বিশ্বেই প্রশংসিত বিধায় এই সুযোগ কাজে লাগানোর পক্ষে মত দিয়েছেন দেশের বিশেষজ্ঞরাও। বর্তমান অচলাবস্থা থেকে রেলকে উদ্ধার করে তাকে সঠিক গণপরিবহনে রূপান্তর করতে হলে ইউরোপীয় মডেল কার্যকর করা একান্ত অপরিহার্য বলে মনে করেন তারা। এর মাধ্যমে বাংলাদেশের রেল ব্যবস্থা আরো উন্নত হবে।

ইতোমধ্যে রেল উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশ রেলওয়ের ১১টি উপ-প্রকল্পের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা ও বিশদ নকশা প্রণয়নের জন্য জাপান, ফ্রান্স, মালয়েশিয়া এবং বাংলাদেশের চার প্রতিষ্ঠানকে পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। এ লক্ষ্যে রেলওয়ে সংযোগ উন্নয়নে কারিগরি সহায়তা প্রকল্প নামে এই প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভার ক্রয় কমিটি।

এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাঈদ মাহবুব খান জানান, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অধীন বাংলাদেশ রেলওয়ের ১১টি উপ-প্রকল্পের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা ও বিশদ নকশা প্রণয়নের জন্য রেলওয়ে সংযোগ উন্নয়নে কারিগরি সহায়তা প্রকল্পের আওতায় পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগ দিয়েছে সরকার। যৌথ উদ্যোগে কাজটি পেয়েছে জাপানের ওসিজি, ফ্রান্সের ইজিআইএস, মালয়েশিয়ার এইচএসএস এবং বাংলাদেশের সুদেব কনসাল্ট ইন্টারন্যাশনাল লিমিটেড। এতে মোট খরচ হবে ১৯৩ কোটি ৬৪ লাখ ২৮ হাজার ৫০৬ টাকা।

রেলপথ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ রেলওয়ে সম্প্রসারণ, আধুনিকায়ন ও বিনিয়োগে আকর্ষণের জন্য ২০২১ সালের ২২ নভেম্বর থেকে ৫ ডিসেম্বর রেলমন্ত্রীর নেতৃত্বে আট সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল যুক্তরাজ্য, জার্মানি, স্পেন ও ফ্রান্স সফর করেছেন। ঐ বছরের ২২ নভেম্বর আইএমএফ (আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল) পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট লিমিটেড ও কুবিক ট্রান্সúোর্ট সিস্টেম এর সাথে মতবিনিময় করেন এই প্রতিনিধি দল। সভায় বাংলাদেশের রেলওয়ের ইতিহাস, বর্তমান চলমান প্রকল্প, মাস্টার প্ল্যানে অন্তর্ভূক্ত প্রকল্পসমূহ ও রেল নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ ও আধুনিকায়নে বর্তমান সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ উপস্থাপন করা হয় বলে জানিয়েছেন রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

মন্ত্রী জানান, ২০২১ সালের ২৩ নভেম্বর ওয়েস্ট মিনিস্টারের চার্চহাউজে জি-ভলিউশন ও এক্সপোনেট চিনা এই দুই কোম্পানির সঙ্গে আমাদের মত বিনিময় হয়। এই দু’কোম্পানি ডিজেল ইলেকট্রিক লোকোমোটিভ, সিএনজি বা এলএনজির সাহায্যে ডুয়েল কনভার্সনসহ নানা বিষয়ে বিস্তারিতভাবে দুটো প্রস্তাব দেয়। এ প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে বাংলাদেশ রেলওয়েতে লোকোমোটিভসমূহের প্রযুক্তি ব্যবহারের সম্ভাব্যতা যাচাই করে একটা পূর্ণাঙ্গ প্রস্তাব দাখিলের অনুরোধ জানানো হয় বলে জানান রেলপথ মন্ত্রী।

মন্ত্রী আরও জানান, বিভিন্ন সেশনে ঐ বছর ২৪ নভেম্বর ব্রিটিশ স্টিল ফ্যাক্টরি এর ম্যানুফ্যাকচারিং কার্যক্রম আমরা পরিদর্শন করি। ব্রিটিশ স্টিল ফ্যাক্টরি বাংলাদেশে চলমান ও ভবিষ্যত প্রকল্পে তাদের উৎপাদিত বিশ্বমানের পণ্য সরবরাহের বিষয়ে আগ্রহ দেখায়। এরপর গত ২৫ নভেম্বর ইংল্যান্ডের শেফিল্ডে অবস্থিত প্যানডোল ফ্যাক্টরি পরিদর্শন করা হয়। এ সময় কোম্পানিটির বোর্ড অব ডাইরেক্টরদের সাথে এক মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। যদিও তাদের উৎপাদিত রেল ক্লিপ বাংলাদেশে রেলওয়ের বঙ্গবন্ধু সেতু, ভৈরব সেতু প্রকল্পে ইতোমধ্যে ব্যবহার করা হয়েছে।

তিনি জানান, বর্তমানে চলমান আখাউড়া- লাকসাম ও দোহাজারী-রামু-কক্সবাজার প্রকল্পের প্রয়োজনীয় রেল ক্লিপস এই কোম্পানির নিকট থেকে আমদানি করা হয়েছে। সফরের মধ্যে গত ২৬ নভেম্বর ইংল্যান্ডের ডার্বিশায়ের অবস্থিত ডেলনার ফ্যাক্টরি পরিদর্শন করা হয়। এই ফ্যাক্টরি মূলত রোলিং স্টকের কাপলার, ক্যারেজের গ্যাংওয়ে অ্যাডাপটারসহ ট্রেনের নিরাপত্তা সংশ্লিষ্ট অন্যান্য যন্ত্রাংশ প্রস্তুত করে থাকে। সেখান থেকে বাংলাদেশ রেলওয়ের পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের জন্য ১০০টি ব্রডগেজ ক্যারেজের কাপলার ও গ্যাংওয়ে এই ফ্যাক্টরি হাতে নেয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।

চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেললাইন স্থাপনের কাজও শেষ হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী। তিনি আরো বলেন, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেল লাইনের দুই-তৃতীয়াংশের বেশি কাজ শেষ হয়েছে। কক্সবাজারে আইকনিক রেল স্টেশন স্থাপনসহ এই পথে সাতটি লোকাল রেল স্টেশন স্থাপন করা হচ্ছে। আশা করি ডিসেম্বরের মধ্যে প্রকল্পের কাজ শেষ হবে।

কক্সবাজারের রামু থেকে ঘুমধুম সীমান্ত পর্যন্ত রেললাইন স্থাপনের কাজ বন্ধ থাকার বিষয়ে রেলমন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার রেললাইন প্রকল্পের আওতায় রামু থেকে ঘুমধুম পর্যন্ত রেল লাইন স্থাপনের পরিকল্পনা ছিল। এই রেল লাইন ঘুমধুম থেকে মিয়ানমার হয়ে চীন পর্যন্ত বিস্তৃত হওয়ার কথা। যা ট্রান্সলেশন রেলওয়ের কোয়ার্টারের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করবে। কিন্তু মিয়ানমার অংশে এই রেললাইন স্থাপনের সমীক্ষা করা হয়নি। তাই প্রকল্পের ওই অংশের কাজ বন্ধ আছে।

বাংলাদেশ রেলকে গতিশীল করতে যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি, স্পেন, ফ্রান্স ও রাশিয়া আগ্রহ দেখিয়েছে। ইতোমধ্যে রেলওয়ের ১১টি উপ-প্রকল্পের সম্ভাব্যতা সমীক্ষা ও বিশদ নকশা প্রণয়নের জন্য জাপান, ফ্রান্স, মালয়েশিয়া এবং বাংলাদেশের চার প্রতিষ্ঠানকে পরামর্শক হিসেবে নিয়োগও দেয়ার বিষয়টি সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি অনুমোদন দিয়েছে। এখন পর্যায়ক্রমে সকল উন্নয়ন প্রল্পের কাজ হবে বলে রেলপথ মন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন জানান।

এবি/ জেডআর

‘বীর মুক্তিযোদ্ধা’ স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র পেলেন ১০৪ জন

‘বীর মুক্তিযোদ্ধা’ লেখা জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) পেয়েছেন ১০৪ জন মুক্তিযোদ্ধা। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) আগারগাঁও নির্বাচন ভবনে

এমপি আনারের হত্যাকারীদের চিহ্নিত করা হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, আনোয়ারুল আজীম আনার হত্যার রহস্য ও হত্যাকারীদের প্রায় সবকিছুই চিহ্নিত,

দেশের জন্য নদীর ভূমিকা মানুষের শিরা-উপশিরার মত

দেশের জন্য জন্য নদীর ভূমিকা মানুষের শরীরের শিরা-উপশিরার মত বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম

নৌপথে গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশ প্রতিমন্ত্রীর

কিছু মানুষ আছে নৌপথে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে সরকারের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করার চেষ্টা করে। সে কারণে
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

‘বীর মুক্তিযোদ্ধা’ স্মার্ট জাতীয় পরিচয়পত্র পেলেন ১০৪ জন

এমপি আনারের হত্যাকারীদের চিহ্নিত করা হয়েছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

দেশের জন্য নদীর ভূমিকা মানুষের শিরা-উপশিরার মত

দুই-তিন মাস ধরে এমপি আনারকে খুনের পরিকল্পনা হয়

নৌপথে গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানোর নির্দেশ প্রতিমন্ত্রীর

মেক্সিকোতে নির্বাচনী প্রচারণার মঞ্চ ভেঙে শিশুসহ নিহত ৯

সরকারের এই নীতি কর্তৃত্ববাদী শাসনের চরম দৃষ্টান্ত: রিজভী

আনার অপকর্মে জড়িত কি না তদন্তে বেরিয়ে আসবে: কাদের

নিজ শহর মাশহাদে দাফন করা হবে রাইসিকে

ফিলিস্তিনকে 'একতরফা স্বীকৃতি' দেওয়ায় বাইডেনের বিরোধিতা

অবশেষে ট্রাম্পকেই সমর্থন দিলেন নিকি হ্যালি

ভিয়েতনামের নতুন প্রেসিডেন্ট তো লাম

‘দণ্ড মাথায় নিয়ে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ আইনের দৃষ্টিতে সমীচীন নয়’

খোলামেলা ফটোশুটে প্রিয়াঙ্কার উত্তাপ

বাংলাদেশ ব্যাংক সমবায় সমিতিতে পরিণত হয়েছে: ড. সালেহ উদ্দিন

এমপি আনার হত্যাকাণ্ডে জড়িত কে এই শিলাস্তি রহমান

শান্তিরক্ষা মিশনে নিয়োগ নিয়ে সতর্ক জাতিসংঘ

ইরানের রাষ্ট্রদূতের কার্যালয়ে গিয়ে শোক প্রকাশ করলেন ফখরুল

কারও কোনো ক্ষতি করিনি, চেষ্টাও করিনি: ড. ইউনূস

যে ৫ খাবার আপনার ওজন কমাবে