ই-পেপার বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১

পেশা যখন ইঁদুর নিধন

অনলাইন ডেস্ক
১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৭:২৮
আপডেট  : ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৭:৩১

ইঁদুর মারা এক সময় ছিল জয়পুরহাটের আনোয়ার হোসেনের নেশা। সময়ের ব্যবধানে এখন সেটিই হয়ে গেছে তার পেশা। বাড়ি কিংবা ক্ষেতের ইঁদুর মেরে বিনিময়ে পান চাল অথবা টাকা। তা দিয়েই দুই সস্তান ও স্ত্রীকে নিয়ে চলে তার সংসার।

২৫ বছর ধরে ইঁদুর নিধন করে যাচ্ছেন তিনি। চার লাখ ইঁদুর মেরে স্বীকৃতি হিসেবে পেয়েছেন জাতীয় পুরস্কার।

জানা যায়, আনোয়ার হোসেনের বাড়ি জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার তিলকপুর ভট্টপলাশী গ্রামে। প্রথমে শখের বসে ইঁদুর মারা শুরু করেন আনোয়ার হোসেন। এরপর ইঁদুরের লেজ জমা দিয়ে স্থানীয় কৃষি অফিস থেকে পান পুরস্কার। এখন তাকে এলাকার সবাই ‘ইঁদুর আনোয়ার’ নামেই ডাকেন। ইঁদুর মেরে জীবিকা নির্বাহের পাশাপাশি স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে পেয়েছেন একাধিক পুরস্কার। এখন ইঁদুর মারাকে তিনি পেশা নিয়েছেন।

আনোয়ার হোসেন ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ২৫ বছর আগে যুবক বয়সে একদিন ধানের জমির মধ্যে থাকা ইঁদুরের গর্ত থেকে ধান বের করেন অনোয়ার। পরে সেই ধান মুড়ি বিক্রেতার কাছে দিয়ে মুড়ি নেন। এরপর প্রায়ই তিনি ধানের জমিতে থাকা বিভিন্ন গর্ত থেকে ইঁদুরের লুকিয়ে রাখা ধান সংগ্রহ করে বিক্রি করতে থাকেন। এ সময় যেসব ইঁদুর গর্ত থেকে বের হতো সেগুলো মেরে ফেলতেন।

একদিন কৃষি কর্মকর্তা তাকে মরা ইঁদুরের লেজ স্থানীয় কৃষি অফিসে জমা দিতে বলেন। ইঁদুরের শতাধিক লেজ জমা দেওয়ার পর তাকে কিছু গম ও চাল সহায়তা হিসেবে দেওয়া হয়। এরপর থেকে আনোয়ার ইঁদুর মারাকে পেশা হিসেবে নেন। দুই সন্তানের জনক আনোয়ার হোসেন স্ত্রীকে নিয়ে সুখেই রয়েছেন।

আক্কেলপুর উপজেলার তিলকপুর ভট্টপলাশী গ্রামের কৃষক আল মামুন, মিলন হোসেন, আব্দুস সামাদ জানান, শুধু আমন ধান না, আলু থেকে শুরু করে সব ধরনের ফসল নষ্ট করে ইঁদুর। আমন ধানের মৌসুমে ইঁদুরের অত্যাচার অনেক বেশি হয়। এ ফসলগুলো ইঁদুরের হাত থেকে রক্ষ করছেন আনোয়ার ভাই।

স্বামীর এসব কাজে সবসময় পাশে থেকে সহায়তা করেন স্ত্রী রুবি বেগম। তাদের সংসার ভালোই চলছে। এছাড়া বিভিন্ন পুরস্কার পাওয়ায় নিজেকে ও পরিবারকে নিয়ে গর্ববোধ করেন আনোয়ার হোসেন। ২৫ বছর ধরে ইঁদুর মেরেছেন প্রায় চার লাখ। ২০০৪ সালে ২৩ হাজার ৪৫১টি ইঁদুর মারার জন্য পান জাতীয় পর্যায়ের পুরস্কার।

আনোয়ার হোসেন বলেন, এলাকার ৫৭ জনকে ইঁদুর ধরা ও মারার কৌশল শিখিয়েছি। এখন তারা যেকোনো কৃষক ডাকলে সাড়া দেন এবং তাদের ইঁদুর ধরেন। বিনিময়ে যে পারিশ্রমিক পান তা দিয়ে সংসার চালান। সবাই তাকে ইঁদুর মারার ওস্তাদ হিসেবেই মানেন।

জেলা ছাড়াও অন্যান্য জেলার অনেককেই তিনি এ শিক্ষা দিয়েছেন। তারা দেশের বিভিন্ন স্থান থকে এসে তার কাছে কিভাবে একাজ করতে হয় তা হাতে-কলমে দীক্ষা নেন।

জয়পুরহাট জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোছা. রাহেলা পারভীন জানান, দেশের কৃষকের ফসল রক্ষার্থে প্রতিবছর আয়োজন করা হয় জাতীয় ইঁদুর নিধন অভিযান। অভিযানে এ পর্যন্ত একাধিক স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ে পুরস্কার পেয়েছেন আনোয়ার হোসেন। তার মতো আরও আনোয়ার প্রতিটি জেলায় থাকলে কৃষকের ফসলহানীর পরিমাণ অনেকাংশে কমে যেত। স্থানীয় কৃষি বিভাগ সবসময় তার সঙ্গে আছে এবং আগামীতেও থাকবে।

এবি/ জিয়া

বিশ্বকে বাঁচাতে সময় মাত্র দুই বছর

* ২০৩০ সালের মধ্যে তাপমাত্রা কমাতে হবে ৪৩ শতাংশ, না হলে বিশ্বজুড়ে আরও খরা, বনে

উপজেলা নির্বাচন নিয়ে বিপাকে তৃণমূল

আর মাত্র কদিন পরই শুরু হতে যাচ্ছে সারাদেশে উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। আর এই নির্বাচন নিয়ে

নিমাইচাঁদের পুণ্যস্নানে মানুষের ঢল

রতন বালো, বালিরটেক (মানিকগঞ্জ) ঘুরে এসে: ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য, ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা আর কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ৩০০

ইসরায়েলে ইরানের ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা, অজানা আশঙ্কায় বিশ্ববাসী

গত শনিবার রাতে ইসরায়েলে ড্রোন ও ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে ইরান। সেই জবাব ইসরায়েল কীভাবে দেবে,
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

ঝালকাঠিতে প্রাইভেট-ট্রাক-অটোর ত্রিমুখী সংঘর্ষে নিহত ১১

বিশ্বকে বাঁচাতে সময় মাত্র দুই বছর

উপজেলা নির্বাচন নিয়ে বিপাকে তৃণমূল

ইরানের প্রতিশোধ; বড় যুদ্ধের ঝুঁকিতে পৃথিবী

কৃষি জমি সুরক্ষা ও ব্যবহার আইন দ্রুত পাস করতে হাইকোর্টের রায়

নির্বাচনী দ্বন্দ্বে চকরিয়ায় দুজনকে কুপিয়ে হত্যা

মাদক কারবারে বদির দুই ভাইয়ের সংশ্লিষ্টতা পেয়েছে সিআইডি

রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে নিহত হয়েছে ৫০ হাজারের বেশি রুশ সেনা

ইলিয়াস আলীসহ সব গুম রাষ্ট্রের পৃষ্ঠপোষকতায় হয়েছে: রিজভী

নরসিংদীতে দুই পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে যুবক নিহত

হিজবুল্লাহ বা ইরান কেউই বর্তমানে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত নয়: ইইউ

৮ হাজার ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার সনদ বাতিল: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী

কৃষি গুচ্ছের ভর্তি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ, ২২ এপ্রিল থেকে আবেদন

আমিরাতে ৭৫ বছরের ইতিহাসে বৃষ্টির রেকর্ড, নিহত ২

জিডিপি কমার পূর্বাভাসে চিন্তার কিছু নেই: অর্থমন্ত্রী

জাহাজে দেশে ফিরবেন ২১ নাবিক, বাকি দুজন বিমানে

এমবাপের জোড়া গোলে বার্সাকে কাঁদিয়ে সেমিতে পিএসজি

গরমে সুস্থ থাকতে যেসব খাবার খাবেন

সবচেয়ে বড় ব্ল্যাক হোল আবিষ্কার করলেন জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা

জবিতে নববর্ষ উদযাপন কাল