ই-পেপার বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ৭ ফাল্গুন ১৪৩১
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর

একলা চলো নীতিতে বিএনপি-জামায়াত

রতন বালো
প্রিন্ট ভার্সন
২৮ নভেম্বর ২০২৩, ১০:৩৭
আপডেট  : ২৮ নভেম্বর ২০২৩, ১০:৪৩

  • জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল করে, কিন্তু বেআইনি ঘোষণা করে না- ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু -বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য
  • বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে একটি আইনি বাধ্যবাধকতা মেনে চলতে হচ্ছে। শুধু আমরা নই, বিএনপির নেতারাও তার সঙ্গে দেখা করতে পারছেন না -মিয়া গোলাম পরওয়ার, সেক্রেটারি জেনারেল, জামায়াত

প্রায় এক যুগেরও বেশি সময় কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে পথ চললেও বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির সঙ্গে শেষ পর্যন্ত দূরত্ব তৈরি হয়েছে জামায়াতের। এ দূরত্ব এতদিন খুব একটা প্রকাশ না পেলেও এখন অনেকটাই দৃশ্যমান।

মৃতপ্রায় হয়ে পড়েছে ২০ দলীয় জোটের সাংগঠনিক কার্যক্রম। গত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর জোট নিয়ে ভাবছে না কেউ। একলা চলো নীতিতে চলছে বিএনপি-জামায়াত। জোটের মধ্যে নিবন্ধিত দলমাত্র ছয়টি, বাকি ১৪টি অনিবন্ধিত। অধিকাংশ দল চলছে ব্যক্তিকেন্দ্রিক। সব মিলিয়ে বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের কোনো অস্তিত্বই নেই।

আন্দোলন-সংগ্রাম কিংবা মাঠের রাজনীতিতে তাদের ঐক্যবদ্ধভাবে দেখা যায় না। যে যার মতো চলছে। সিটি করপোরেশন নির্বাচনসহ স্থানীয় নির্বাচনেও অংশ নেয়নি তারা। মতবিরোধের কারণে বিএনপির প্রার্থীদের সঙ্গেও ভোটের মাঠে ছিলেন না শরিক দলের নেতারা। আন্দোলন-সংগ্রামেও রাজপথে এখন আর নেই। করোনা মহামারি সময়ের পর থেকে নেই জোটবদ্ধ কার্যক্রম।

রাজপথের বিরোধী দল বিএনপিও এখন অনেকটাই ‘একলা চলো নীতি’-তে চলছে। অধ্যাপক ডা. বদরুদ্দোজার নেতৃত্বে বিকল্পধারা বাংলাদেশ, প্রয়াত ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার নেতৃত্বে ছিলো বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট এলায়েন্সসহ (বিএনএ) ছোট ছোট জোটগুলো এখন অস্তিত্বসংকটে পড়েছে। এর মধ্যে বামপন্থি রাজনৈতিক আদর্শের পতাকাবাহী আটটি রাজনৈতিক দলের জোট ‘গণতান্ত্রিক বাম জোট’ রাজপথে কিছুটা সক্রিয়।

এ ছাড়া অন্যান্য ছোট দলগুলো এখন বিলীনের পথে। আসন ভাগাভাগি নিয়ে প্রধান এই দলের কাছে শরিক দলগুলো ‘অস্বাভাবিক’ আবদারও করেছিল। যদিও শেষ পর্যন্ত গুটিকয়েক আসন নিয়েই তাদের সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছিল। ভোটের পর থেকেই জোটবদ্ধ দলগুলোর নেই তেমন কোনো কার্যক্রম।

২০ দলীয় জোটে টানাপোড়েন চলছে দীর্ঘদিন। দলের ভেতর টানাপোড়েনে ২০১৯ সালে বিএনপি ছাড়েন বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) আন্দালিব রহমান পার্থ। এরপর বিএনপির জোটের রাজনীতি ও ভবিষ্যৎ নিয়ে আলোচনা চলে আসে। এবার বিএনপির সঙ্গে সবচেয়ে বড় জোট জামায়াতকে ছাড়া আলোচনা চলছে তুঙ্গে।

২০১৮ সালের পর নানাভাবে যোগাযোগ-বিচ্ছিন্নতা ও প্রকাশ্য জোটগত অবস্থান না থাকলেও আবারও বিএনপি-জামায়াতের মধ্যে ঘনিষ্ঠ যোগাযোগ শুরু হয়েছে। সম্প্রতি বিএনপির স্থায়ী কমিটির উচ্চ পর্যায়ের দুই নেতার সঙ্গে জামায়াতের একাধিক নেতার আলাপ হয়। সেই আলোচনায় উভয় দলের মধ্যে দূরত্ব কমানোর প্রক্রিয়ার বিষয়টিও স্থান পায়। বিএনপি ও জামায়াতের উচ্চ পর্যায়ের কয়েকজন নেতা এসব তথ্য জানান।

জামায়াতের নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র জানিয়েছে, সম্প্রতি বিএনপির দুই সিনিয়র দায়িত্বশীল নেতার সঙ্গে জামায়াতের একাধিক নেতার বৈঠক হয়। তবে বৈঠকটি কোথায় হয়েছে, তা জানা যায়নি। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সম্মতির ভিত্তিতেই উভয় পক্ষের কাছে আসা বলে সূত্রের দাবি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জামায়াতের নায়েবে আমির ডা. সৈয়দ আবদুল্লাহ মোহাম্মদ তাহের বলেন, বিএনপি ও জামায়াত পারস্পরিকভাবে যোগাযোগ করছে। উভয় দলের মধ্যে যোগাযোগ হচ্ছে।

এদিকে বিএনপি নেতারা জানান, ২০২০ সালে করোনাভাইরাস সংক্রমণের আগে-আগে অনুষ্ঠিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে জোটসঙ্গী জামায়াতকে নিয়ে পর্যালোচনা শুরু করে বিএনপি। ওই পর্যালোচনায় স্থায়ী কমিটির অধিকাংশ সদস্য জানিয়েছেন, জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিসরে ভবিষ্যৎ রাজনীতিতে ধর্মভিত্তিক দলগুলোর গুরুত্ব অনেকাংশেই কম। সে কারণে জামায়াতের সঙ্গে বিদ্যমান জোটগত সম্পর্ককে নতুনভাবে দেখা প্রয়োজন।

বিএনপি চেয়ারপারসন কার্যালয়ের একাধিক সূত্র বলছে, জামায়াতের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক দৃশ্যমান হবে না। তারা বিএনপির পাওয়ার পকেটের সঙ্গে যোগাযোগ রাখে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। জামায়াতের একজন কেন্দ্রীয় নেতা মনে করেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের চেয়ে চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক মেইনটেইন করা সহজ ছিল।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠনের মতো ২০২১ সালের শুরু থেকে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক ঐক্য গড়ে তোলার কাজ শুরু করে বিএনপি। এরপর নানা কর্মসূচিতেও বিএনপি-জামায়াত শীতলতা প্রকাশ্যে আসে।

২০২১ সালের ৩০ অক্টোবর ‘এই জামায়াত বাংলাদেশকে আজ এই জায়গায় নিয়ে এসেছে’ বলে দলটির ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। তার মুখে শোনা যায়, এসবই জামায়াতের ফাইজলামি।

এরইমধ্যে ২০২২ সালের শেষ দিকে এসে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ২০ দলীয় জোট তথা জামায়াতের সঙ্গে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করা হয়। একই বছর অন্যান্য বিরোধী দলের সঙ্গে মতবিনিময় করলেও জামায়াতের সঙ্গে প্রকাশ্যে কোনো বৈঠক থেকে বিরত থাকে বিএনপি।

ওই বছরের ২৬ সেপ্টেম্বর বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ দলীয় এক সমাবেশ বলেন, আওয়ামী লীগের মুখে প্রায়ই শুনি, যেটা বুলি হয়ে গেছে। তারা প্রায়ই বলে, বিএনপি-জামায়াত, বিএনপি-জামায়াত। আমি বলছি, এখন সময় এসেছে আওয়ামী-জামায়াত, আওয়ামী-জামায়াত বলার। ওরা (আওয়ামী লীগ) জামায়াতের নিবন্ধন বাতিল করে, কিন্তু বেআইনি ঘোষণা করে না।

এ বিষযে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, এ বিষয়টি আমার জানা নেই। এ বিষয়ে আমাদের মহাসচিব ও দুটি লিয়াজোঁ কমিটি আছে তাদের সঙ্গে কথা বলুন। পরে বিষয়টি নিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরও চার সদস্যকে ফোন করা হলেও তাদের সঙ্গে কথা বলা যায়নি।

সম্প্রতি জোটের শরিক দল হিসেবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে থাকাবস্থায় জামায়াতের তৎপরতা চোখে পড়েনি। জামায়াতের ভূমিকা নিয়ে দীর্ঘ আলোচনা হলেও বিষয়টি নির্ভর করছিল বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার ওপর। কারণ তার একক সিদ্ধান্তেই গড়ে ওঠে বিএনপি-জামায়াত সম্পর্ক।

এ বিষয়ে জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ার বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া শর্ত-সাপেক্ষে কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়ার পর তাকে একটি আইনি বাধ্যবাধকতা মেনে চলতে হচ্ছে। শুধু আমরা নই, বিএনপির নেতারাও তার সঙ্গে দেখা করতে পারছেন না।

আমার বার্তা/ওসমান

নছিমন-করিমন সবই চলে মহাসড়কে

    সরকারি নিষেধাজ্ঞার প্রজ্ঞাপন বিফলে যাচ্ছে     চাঁদার বদৌলতেই চলছে অযান্ত্রিক যানবাহন     দুর্ঘটনার জন্য তিন চাকার

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রীর কল্যাণমূলক কর্মতৎপরতা

জাতীয় সংসদের গাজীপুর-৪ আসন থেকে চতুর্থবারের মতো  নির্বাচিত সংসদ সদস্য সিমিন হোসেন রিমি মহিলা ও

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রীর সফলভাবে পথচলা

প্রধানমন্ত্রীর একান্ত আস্থাভাজন ডা: সামন্ত লাল সেনের  স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের নতুন মন্ত্রী হিসেবে

ভাষা আন্দোলন দিবসের নামকরণ

ভাষা আন্দোলন দিবস (যা রাষ্ট্রভাষা দিবস বা জাতীয় শহীদ দিবস নামেও পরিচিত) বাংলাদেশে পালিত একটি
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

একটা বিজাতীয় ভাষা আমাদের ওপর চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা হয়

শক্তিশালী পাসপোর্ট সূচকে পেছাল বাংলাদেশ

বিএনপি নেতা আলাল কারামুক্ত

খতনা করতে এসে শিশুর মৃত্যু: জেএস ডায়াগনস্টিক সিলগালা

বাংলাদেশি জনপ্রতিনিধিদের আইনের মধ্যে থাকার আহ্বান যুক্তরাষ্ট্রের

রাজকীয় শাসন চালু করেছে দেশীয় হানাদার বাহিনী: রিজভী

অবশেষে পাকিস্তানে সরকার গঠনে অনিশ্চয়তা কাটলো

ফের সুন্নতে খৎনা করাতে গিয়ে আইডিয়াল শিক্ষার্থীর মৃত্যু

শহীদ মিনারে সর্বস্তরের মানুষের ঢল

রক্তঝরা অমর একুশে আজ

বিশ্বে ৩৫ কোটির বেশি বাংলা ভাষাভাষী: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সাম্প্রদায়িক বীজবৃক্ষ তুলে ফেলব

২১ ফেব্রুয়ারি ঘটে যাওয়া নানান ঘটনা

জাবি ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি-সম্পাদক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার

ভাষাশহীদদের প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

ঢাকার দুই জজ আদালতে নতুন বিচারক

একুশ বরণে প্রস্তুত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

অর্থপাচারের ৮৫ শতাংশই আমদানি-রপ্তানির আড়ালে

একুশের চেতনা অনুপ্রেরণার অবিরাম উৎস

গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার পুনরুদ্ধারের আন্দোলন চলবে