ই-পেপার রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১

পানি বণ্টন চুক্তির নবায়নে ক্ষুব্ধ পশ্চিমবঙ্গের তৃণমূল

পারভেজ খান
২৫ জুন ২০২৪, ১১:৪৩

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নয়াদিল্লি সফরকালে গত শনিবার গঙ্গার পানি বণ্টন চুক্তি নবায়নের আশ্বাস দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। তবে গত রোববার আনন্দবাজার পত্রিকার অনলাইনে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শনিবার গঙ্গার পানি বণ্টন চুক্তি নবায়ন হয়েছে। এর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বিষয়টি নিয়ে আপত্তি তুলেছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস।

আর এতে চরম ক্ষুব্ধ হয়েছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী পশ্চিমবঙ্গের মূখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপধ্যায়। অসন্তোষ প্রকাশ করে তিনি চিঠি পাঠিয়েছেন মোদিকে। তিস্তা এবং ফারাক্কার পানি বাংলাদেশকে দেয়ার বিষয়ে ব্যাপক বিরোধিতা করেছেন তিনি। এমনকি একতরফাভাবে সিদ্ধান্ত নেয়ার প্রতিবাদে ভারতজুড়ে আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। মোদিকে পাঠানো চিঠিতে মমতা লিখেছেন, ‘পশ্চিমবঙ্গ সরকারের অংশগ্রহণ ছাড়া তিস্তা এবং ফরাক্কার জলবণ্টন নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে কোনো রকম চুক্তিতে আমার তীব্র আপত্তি রয়েছে।’

ভারতের গণমাধ্যম সূত্রে জানা যায়, শনিবার দিল্লিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বৈঠকের পরেই আপত্তি তোলা হয়েছিল তৃণমূলের তরফে। সোমবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখে ‘ফারাক্কা-গঙ্গা জলবণ্টন চুক্তি’ নবীকরণ এবং তিস্তার জল ভাগাভাগি নিয়ে দ্বিপাক্ষিক উদ্যোগ নিয়ে প্রশ্ন তুলেন।

চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, ‘গঙ্গা এবং তিস্তার জলবণ্টন নিয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে হয়ত আপনার কিছু আলোচনা হয়েছে। কিন্তু রাজ্য সরকারের কোনো মতামত না নিয়ে এমন একতরফা আলোচনা গ্রহণযোগ্য নয়।’

বাংলাদেশের সরকার এবং জনগণের সঙ্গে যে তিনি সুসম্পর্ক রাখতে চান, সেই বার্তা দিয়ে মমতা জানিয়েছেন, ছিটমহল বিনিময়, রেল ও বাস যোগাযোগের মতো গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নিবিড় হয়েছে। এর পরেই তার মন্তব্য, ‘কিন্তু জল অত্যন্ত মূল্যবান। প্রাণধারণের রসদ নিয়ে কোনো সমঝোতা করতে আমরা প্রস্তুত নই।’

পশ্চিমবঙ্গবাসীর কাছে পানি বণ্টনের বিষয়টি অত্যন্ত স্পর্শকাতর বলেও অভিযোগ করেন তিনি। বস্তুত, গতকাল সোমবার বিকেলে সাংবাদিকদের সাথে এক বৈঠকে পানিবণ্টন নিয়ে নয়াদিল্লি-ঢাকা দ্বিপাক্ষিক উদ্যোগ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন মমতা। সেই সঙ্গে তার অভিযোগ, ‘চীনকে দিয়ে ড্যাম (জলাধার) বানিয়েছে বাংলাদেশ।’

প্রসঙ্গত, গঙ্গার পানি বণ্টন নিয়ে ১৯৯৬ সালে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে চুক্তি হয়েছিল। সেই চুক্তির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ২০২৬ সালে। এই আবহে শনিবার নয়াদিল্লিতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হাসিনা এবং ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদির মধ্যে একটি বৈঠক হয়। সেখানে ‘ফারাক্কা-গঙ্গা পানিবণ্টন চুক্তি’ নবায়নের জন্য ‘যৌথ কারিগরি গঠন করা হয়। কার্যত এই পদক্ষেপের মাধ্যমে দু’দেশ পানি বণ্টন চুক্তির নবায়ন প্রক্রিয়া শুরু হলো। রোববারই তৃণমূলের তরফে মোদি সরকারের ওই পদক্ষেপের সমালোচনা করা হয়েছিল।

১৯৯৬-এ যখন বাংলাদেশ-ভারতের মধ্যে ৩০ বছরের জন্য পদ্মার পানি বণ্টন চুক্তি হয়েছিল, সে সময় ঢাকায় এখনকার মতোই শেখ হাসিনার সরকার ছিল। দিল্লিতে ছিল এইচডি দেবগৌড়ার যুক্তফ্রণ্ট সরকার। পশ্চিমবঙ্গের তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু সে সময় এই চুক্তিতে সমর্থন দিয়েছিলেন। তৎকালীন ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার সে সময় রাজ্যকে প্রয়োজনীয় গুরুত্ব দিলেও মোদির জমানায় যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোকে অগ্রাহ্য করে রাজ্যকে পুরো প্রক্রিয়া থেকে দূরে সরিয়ে রাখা হচ্ছে বলে সেখানকার একটি মহল থেকে অভিযোগ উঠেছে ইতিমধ্যেই।

১৯৯৬ সালের চুক্তি মোতাবেক, জানুয়ারি ও ফেব্রুয়ারি মাসে প্রতিদিন ৪০ হাজার কিউসেক করে পানি পায় ভারত। ফারাক্কা ব্যারাজ থেকে ফিডার ক্যানাল হয়ে কলকাতা বন্দরে যায় সেই পানি। অবশিষ্ট পানি মূল ব্যারেজ হয়ে আসে বাংলাদেশে। তবে মার্চ-এপ্রিলে নদীতে পানি কমতে শুরু করলে সমস্যা বাড়ে। চুক্তি অনুযায়ী, মার্চ মাসে ২০ দিন বাংলাদেশে ৩৫ হাজার কিউসেক করে পানি আসে। পরবর্তী ১০ দিন ভারত পায় একই পরিমাণ পানি। এপ্রিলে উল্টো। ওই মাসে ভারত ২০ দিন পায় ৩৫ হাজার কিউসেক , বাংলাদেশ শেষ ১০ দিন পাবে একই পরিমাণ পানি। বাকি সময় নদীতে যে প্রবাহ থাকবে, তা সমানভাবে পাবে দু’দেশ।

মোদিকে পাঠানো চিঠিতে মমতা লিখেছেন, ‘পশ্চিমবঙ্গের জনজীবনে গঙ্গার জলের গুরুত্বের পাশাপাশি ফারাক্কা থেকে পাওয়া জল কলকাতা বন্দরের নাব্য বজায় রাখার ক্ষেত্রেও বড় ভরসা।’ সেই সঙ্গে চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রীর বার্তা, ‘ফারাক্কা ফিডার ক্যানালের মাধ্যমে অন্তত ৪০ হাজার কিউসেক জল পেলে কলকাতা বন্দরের নাব্য বজায় রাখা সম্ভব।’ তা না হলে গঙ্গায় পলি পড়ে কলকাতা বন্দর জাহাজ চলাচলের উপযোগী নাব্য হারাতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি।

প্রায় আট বছর আগে ফারাক্কা ব্যারেজ থেকে ঠিক ২০০ কিলোমিটার দক্ষিণে পাংশায় পদ্মা নদীর উপর হাসিনা সরকার বাঁধ নির্মাণে উদ্যোগী হওয়ায় আপত্তি তুলেছিল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। দু’দেশের উপর দিয়ে প্রবাহিত জলঙ্গি এবং মাথাভাঙা নদী ইতিমধ্যেই পদ্মার সঙ্গে সংযোগ হারিয়ে ফেলেছে বলে চিঠিতে জানিয়েছে মুখ্যমন্ত্রী। লিখেছেন, ‘এর ফলে সুন্দরবনে মিষ্টি জলের প্রবাহ ব্যাহত হয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো চিঠিতে তিস্তার পানিবণ্টন প্রসঙ্গেও উল্লেখ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। লিখেছেন, ‘সিকিমে জলবিদ্যুৎ প্রকল্পের কারণে তিস্তার গুরুতর স্বাস্থ্যহানি হয়েছে। পরিবেশের উপর ক্ষতিকর প্রভাব পড়েছে।’ এরপরেই কেন্দ্রকে নিশানা করে চিঠিতে তার মন্তব্য, ‘দেখে আশ্চর্য হচ্ছি, তিস্তার ভারতীয় অংশের স্বাস্থ্য ফেরাতে জলশক্তি মন্ত্রকের কোনো উদ্যোগই নেই!’ সিকিমে পানিবিদ্যুৎ প্রকল্পের কারণে তিস্তায় পানিপ্রবাহ কমেছে এবং তাতে উত্তরবঙ্গের কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন বলেও অভিযোগ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

প্রসঙ্গত, ১৯৮৩ সালে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে একটি অস্থায়ী চুক্তি হয়। ২০১১ সালে আর একটি তিস্তা চুক্তির খসড়া তৈরি করে দুই দেশ, যেখানে শুকনো মওসুমে ভারতের ৩৭.৫ শতাংশ এবং বাংলাদেশের ৪২.৫ শতাংশ পানি পাওয়ার কথা হয়। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই চুক্তির বিরোধিতা করেন পশ্চিমবঙ্গের স্বার্থহানির যুক্তি দেখিয়ে।

আমার বার্তা/জেএইচ

কঠোর অবস্থানে সরকার

* কোটা আন্দোলন নিয়ে মন্ত্রীদের অবস্থান স্পষ্ট * মামলা প্রত্যাহারে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম * আন্দোলন অন্যদিকে ধাবিত

শিল্পকলা একাডেমি সম্মাননা পেলেন ১৫ গুণীজন

লোকসঙ্গীত শিল্পী মো. আবুল বাশার আব্বাসী। বয়স ৫০ পেরিয়ে ৫১ ছুঁই ছুঁই। আট বছর বয়স

জনজীবনে দুর্ভোগের থাবা

চলছে আষাঢ় মাসের শেষ সপ্তাহ। আকাশ ভেঙে রিমঝিম বা ঝুমবৃষ্টি নামবে এমনটাই স্বাভাবিক। গত কদিন

বাকিরকেও হার মানিয়েছেন সিবিএ নেতা সারোয়ার!

বিআইডব্লিউটিএ'র (সরকারি দল) এর সিবিএ নেতা সারোয়ার হোসাইন বিএনপি পন্থী সোনালী ব্যাংকের সিবিএ নেতা বাকির
  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়

রেড ক্রিসেন্ট সদস্যদের আন্তরিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের আহ্বান

খুলনা শিপইয়ার্ডের সাবেক এমডিসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মামলা

মেডিকেল কলেজের মান বাড়লে আরও দক্ষ চিকিৎসক তৈরি হবে

কোটা নিয়ে মন্ত্রিসভায় আলোচনা করে সিদ্ধান্ত: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী

সরকারকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিলো আন্দোলনকারীরা

ট্রাম্পের ওপর হামলায় উদ্বেগে-নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ

রাষ্ট্রপতির কাছে স্মারকলিপি জমা দিলেন আন্দোলনকারীরা

পুলিশ সেজে পণ্যবাহী গাড়িতে ডাকাতি করতো তারা

স্মারকলিপি দিতে বঙ্গভবনে কোটাবিরোধীদের প্রতিনিধি দল

আস্থা রাখুন শেখ হাসিনায়

শিক্ষার্থীরা না বুঝেই কোটা নিয়ে আন্দোলন করছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ব্যারিকেড ভেঙে বঙ্গভবনের দিকে যাচ্ছেন শিক্ষার্থীরা

শিক্ষার্থীদের গণপদযাত্রা পুলিশি বাধার মুখে

আন্দোলনকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবিলার ইচ্ছা নেই: কাদের

প্রত্যয় স্কিম: তিন দফা দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাবেন শিক্ষকরা

দেশের অর্থনীতি এখন যথেষ্ট শক্তিশালী: প্রধানমন্ত্রী

ফাঁস হওয়া প্রশ্নে উত্তীর্ণ কর্মকর্তাদের তালিকা প্রকাশে আইনি নোটিশ

৭৭ প্রতিষ্ঠানকে জাতীয় রপ্তানি ট্রফি তুলে দিলেন প্রধানমন্ত্রী

বঙ্গভবন অভিমুখে গণপদযাত্রায় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা

আপনার ভাষায় অনুবাদ হবে হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ