জাতীয় পার্টির জোটগত মনোনয়ন পাচ্ছেন যারা

আগামী ৩০ ডিসেম্বরের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মহাজোটগতভাবে নির্বাচনে অংশ নিচ্ছে। শরিকদের জন্য ৭০টি আসন ছেড়ে গতকাল রবিবার ২৩০টি আসনের প্রার্থীর তালিকা ঘোষণা করেছে আওয়ামী লীগ। মহাজোটের অন্যতম প্রধান শরিক দল জাতীয় পার্টিকে জোটগতভাবে ৪৫টি আসন ছাড় দিচ্ছে আওয়ামী লীগ।

আজ সোমবার বিকালে আওয়ামী লীগের ধানমন্ডি কার্যালয়ে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোটের সব প্রার্থীর নাম আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করা হবে। এ সময় প্রতিটি দলের সাধারণ সম্পাদক ও মহাসচিব উপস্থিত থাকবেন।

এমপিদের মধ্যে যারা বহাল থাকছেন : জাতীয় পার্টির বর্তমান যেসব এমপি মহাজোটগতভাবে মনোনয়ন পাচ্ছেন : নীলফামারী-৪ মো. শওকত চৌধুরী, রংপুর-১ মশিউর রহমান রাঙ্গা, রংপুর-৩ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, কুড়িগ্রাম-১ এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান, কুড়িগ্রাম-২ পনিরউদ্দিন আহমেদ, কুড়িগ্রাম-৩ ড. আক্কাস আলী, বগুড়া-২ শরিফুল আলম জিন্নাহ, বগুড়া-৩ নুরুল ইসলাম তালুকদার, বগুড়া-৬ মো. নুরুল ইসলাম ওমর, বগুড়া-৭ মুহাম্মদ আলতাফ আলী, পটুয়াখালী-১ এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার, বরিশাল-৬ বেগম নাসরিন জাহান রত্না, ময়মনসিংহ-৪ বেগম রওশন এরশাদ, ময়মনসিংহ-৫ সালাহউদ্দিন আহমেদ মুক্তি, ময়মনসিংহ-৮ ফখরুল ইমাম, কিশোরগঞ্জ-৩ মো. মুজিবুল হক, ঢাকা-৪ সৈয়দ আবু হোসেন, ঢাকা-৬ কাজী ফিরোজ রশীদ, ঢাকা-১৭ হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, নারায়ণগঞ্জ-৩ লিয়াকত হোসেন খোকা, নারায়ণগঞ্জ-৫ এ কে এম সেলিম ওসমান, সুনামগঞ্জ-৪ পীর ফজলুর রহমান, সিলেট-২ ইয়াহিয়া চৌধুরী, সিলেট-৫ সেলিম উদ্দিন, হবিগঞ্জ-১ মোহাম্মদ আবদুল মুনিম চৌধুরী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের জিয়াউল হক মৃধার স্থলে তার জামাতা অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, কুমিল্লা-২ মোহাম্মদ আমির হোসেন, কুমিল্লা-৮ নুরুল ইসলাম মিলন, চট্টগ্রাম-৫ আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, কক্সবাজার-৩ জিয়াউদ্দিন আহমেদ (বাবলু), গাইবান্ধা-১ ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী। আওয়ামী লীগের ঘোষণা করা তালিকায় এসব আসনে তাদের প্রার্থী নেই।

এমপিদের মধ্যে বাদ পড়ছেন যারা : বর্তমান এমপিদের মধ্যে মহাজোটগতভাবে বাদ পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে ঢাকা-১ আসনে অ্যাডভোকেট সালমা ইসলাম, জামালপুর-৪ এ মোহাম্মদ মামুনুর রশিদ, কক্সবাজার-১ এ মো. ইলিয়াস এবং লক্ষ্মীপুর-২ আসনের মোহাম্মদ নোমান।

নতুন করে যোগ হচ্ছেন যারা : বর্তমান সংসদে না থাকলেও জাতীয় পার্টি চাওয়া অনুযায়ী মহাজোটগতভাবে আওয়ামী লীগের ছাড় দেওয়া আসনগুলো হলো— লালমনিরহাট-৩ গোলাম মোহাম্মদ কাদের, বরিশাল-২ মাসুদ পারভেজ সোহেল রানা, ফেনী-১ লে. জে. (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী, নীলফামারী-১ জাফর ইকবাল সিদ্দিকী, নোয়াখালী-১ আবু নাসের ওয়াহেদ ফারুক (ইসলামী মহাজোট), চট্টগ্রাম-১২ এম এ মতিন (ইসলামী ফ্রন্ট), গাইবান্ধা-৩ ব্যারিস্টার দিলারা খন্দকার, গাইবান্ধা-২ আবদুর রশিদ সরকার, ঠাকুরগাঁও-৩ মো. হাফিজ উদ্দিন। এই আসনগুলোতেও আওয়ামী লীগ প্রার্থী দেয়নি।

আওয়ামী লীগের প্রার্থী ঘোষণা হলেও যেসব আসন চায় জাপা : ঢাকা-১ আসনে আওয়ামী লীগ সালমান এফ রহমানের নাম ঘোষণা করলেও জাতীয় পার্টি এই আসনে সালমা ইসলামকে চায়। এ ছাড়াও লালমনিরহাট-২ রোকন উদ্দিন বাবুল, লালমনিরহাট-১ মেজর (অব.) খালেদ আখতার, রংপুর-২ আসাদুজ্জামান চৌধুরী সাবলু, জয়পুরহাট-২ আবুল কাশেম রিপন, বরগুনা-২ আলহাজ মিজানুর রহমান, কুমিল্লা-১১ এ টি এম আলমগীর, জামালপুর-২ মোস্তফা আল মাহমুদ, ঢাকা-৫ মীর আবদুস সবুর আসুদ, ঢাকা-১৩ সফিকুল ইসলাম সেন্টু, টাঙ্গাইল-৫ পীরজাদা শফিউল্লাহ আল মুনির, সংসদীয় আসন ২৯৮ (পার্বত্য খাগড়াছড়ি) শেখ সোলায়মান আলম শেঠ।