ফুফুর এক কথাতেই রাজনীতিতে পরশ

0

শনিবার বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে যুবলীগের সপ্তম কংগ্রেসের দ্বিতীয় অধিবেশন শেষে এ ঘোষণা দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

যুবলীগ একটি মাল্টিক্লাস সংগঠন। এখানে কেবল ছাত্রলীগের সাবেক প্রতিশ্রুতিশীল নেতারাই শুধু নয়, বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার প্রতিশ্রুতিশীল যুবকদের সম্মিলন ঘটে। টানা তিন মেয়াদে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় রয়েছে।

যে কারণে ক্ষমতাসীন সংগঠনের সহযোগী সংগঠন হিসাবে যুবলীগের সাংগঠনিক পরিচয়ে কেউ কেউ অনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়েছে। এর দায় তো সংগঠনের না, এর দায় নেতৃত্বের। তাই আগামী দিনে সংগঠনের ভাবমূর্তির সংকট কাটিয়ে উঠতে যুবলীগের মতো সৃষ্টিশীল নির্ভীক নেতৃত্বই উপহার দিয়েছেন যুবলীগের সাংগঠনিক অভিভাবক আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা।

ছোটবেলায় মা, বাবাকে হারিয়েছেন পরশ। অভিমান থেকেই রাজনীতি থেকে দূরে সরে ছিলেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যিনি একটি স্বাধীন দেশকে জন্ম দিয়েছেন। তাকে এই দেশের মানুষ সপরিবারে মেরে ফেলেছে। তাই রাজনীতি থেকে দূরে ছিলেন শিক্ষিত মার্জিত পরশ।

জানা যায়, প্রথমে পরশ অনাগ্রহী ছিলেন দায়িত্ব নিতে। শেখ হাসিনা তাকে ডেকে নেন। কাছে নিয়ে বোঝান রাজনীতি তাকে কেন করতে হবে। তার বাবা রাজনীতির জন্য প্রাণ দিয়েছেন। কিন্তু শেখ হাসিনা এখনো মানুষের সেবার জন্যই বেঁচে আছেন। এই পরিবার মানুষের সেবার জন্যই। শেখ হাসিনার কথা ফেলতে পারেননি পরশ।

দায়িত্ব পেয়ে তিনি বলেছেন, আমরা সবাই সমান। আমরা সবাই আওয়ামী লীগের কর্মী। নেতা নয় একজন সাধারণ মানুষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করবো।সূত্র:বাংলা ইনসাইডার

(Visited 919 times, 1 visits today)

Leave A Reply

Your email address will not be published.